Foto

কলকাতার ধর্না তুলে এবার দিল্লি যাবেন মমতা


তিন দিন পর ধর্না প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে কলকাতায় ধর্না প্রত্যাহার করলেও আগামী সপ্তাহে রাজাধানী দিল্লিতে একই কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।


মমতা বলেন, “আমরা লড়াই থামাচ্ছি না, আমরা এই লড়াইকে দিল্লি নিয়ে যাব।

“সংবিধান ও গণতন্ত্রের জন্য এই ধর্না; আজ আমাদের জয় হয়েছে, তাই ধর্না প্রত্যাহার করছি। সুপ্রিম কোর্ট আজ ইতিবাচক রায় দিয়েছে। আগামী সপ্তাহে আমরা এই বিষয়টিকে দিল্লি নিয়ে যাব।”

দিল্লির যন্তর মন্তরে সম্ভাব্য ওই কর্মসূচিতে অন্যান্য প্রদেশের সমমনা মুখ্যমন্ত্রীরাও অংশ নিতে পারেন বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যা ছয়টা নাগাদ তেলেগু দেশাম পার্টির-টিডিপি নেতা অন্ধ্রোপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইড়ু এবং তেজস্বী যাদবের সঙ্গে প্রায় এক ঘণ্টার বৈঠকের পর মমতা ধর্না তুলে নেওয়ার ঘোষণা দেন বলে জানায় দৈনিক আনন্দবাজার।

চন্দ্রবাবু বলেন, “আমরা শরদ পাওয়ার, অরবিন্দ কেজরিওয়াল, শরদ যাদবসহ কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা সবাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই ধর্না কর্মসূচি বন্ধ করা উচিত বলে মত দিয়েছেন। আমরা এই বিষয়টি দিল্লিতে নিয়ে যাচ্ছি।”

এর আগে সকালে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজিব কুমারকে আপাতত গ্রেপ্তার না করার সিদ্ধান্ত দেয়।

সারদা ও রোজভ্যালি অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনায় জব্দ করা তথ্যপ্রমাণ ও আলামত ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা-সিবিআইকে হস্তান্তর করেননি অভিযোগে গত রোববার কলকাতার লাউডন স্ট্রিটে রাজিবের বাড়িতে হানা দেন সিবিআই কর্মকর্তারা।

কলকাতার পুলিশ সিবিআই কর্মকর্তাদের বাড়িতে ঢুকতে না দিয়ে আটক করে থানা নিয়ে যায়, অবশ্য পরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

জাতীয় নির্বাচনের মাত্র দুই মাস আগে সিবিআই ও রাজ্য পুলিশের এই বিরোধকে রাজনৈতিক চেহারা দিয়ে রীতিমত তুলকালাম বাঁধিয়ে দেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা।

গত তিন দিন ধরে তিনি কলকাতার ধর্মতলার মেট্রো চ্যানেলে অবস্থান নিয়ে ছিলেন এবং সেখান থেকেই সরকার ও দলীয় সব কাজ সারেন।

রাজিবকে এখনই গ্রেপ্তার না করার নির্দেশ দিলেও আদালত সারদা ও রোজভ্যালি অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনায় তার হাতে থাকা সব তথ্যপ্রমাণ ও আলামত সিবিআইর কাছে হস্তান্তর করতে বলেছে।

এজন্য রাজিবকে আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি মেঘালয়ের শিলংয়ে সিবিআইয়ের সামনে উপস্থিত হয়ে পূর্ণ সহযোগিতা করতে বলেছে।

Facebook Comments

" প্রতিবেশী " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ