Foto

নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলাকারী ট্রাম্পের সমর্থক


নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আল নূর মসজিদে হামলাকারী অস্ট্রেলিয়ান যুবকের পরিচয় পাওয়া গেছে। তাকে এক শ্বেতাঙ্গ সন্ত্রাসী বলে নিশ্চিত করেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। টুইটারে তার নাম ব্রেনটন ট্যারান্ট। তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থক বলেও দাবি করেছেন তার টুইটে।


কানাডাভিত্তিক সংবাদমাধ্যম সিবিএস নিউজ জানিয়েছে, হামলার আগে একটি মেনিফেস্টো সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করে ট্যারান্ট। তাতে নিজেকে অস্ট্রেলিয়ান হিসেবে পরিচয় দিয়েছে।

অভিবাসীবিদ্বেষী এই হামলাকারী তার মেনিফেস্টোতে বলেছে, হামলা করে সে ‌‌’অনুপ্রবেশকারীদের (অভিবাসীদের) দেখাতে চায় যে, আমাদের ভূমি কখনো তাদের ভূমি হবে না যতক্ষণ শেতাঙ্গরা জীবিত থাকবে।’ সে আরও লিখেছে, ‌’আমাদেরকে আমাদের এবং নিজেদের শিশুদের ভবিষ্যতকে নিশ্চিত রাখতে হবে।’

নিজেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একজন সমর্থক হিসেবে তুলে ধরে হামলাকারী। তার মেনিফেস্টোতে লিখেছেন, ’পূনরুজ্জীবিত শ্বেতাঙ্গ পরিচয়ের প্রতীক হিসেবে’ বললে আমি অবশ্যই ট্রাম্পের একজন সমর্থক। তবে নেতা বা নীতিনির্ধকার হিসেবে চিন্তা তার সমর্থক নই।’

হামলার আগে টুইটারে ৮৭ পাতার ইশতেহার আপলোড করেন ট্যারান্ট। সেখানে তিনি আগেই সন্ত্রাসী হামলার আভাস দিয়েছেন।

এদিকে, নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডানও এ হামলাকে সুপরিকল্পিত বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, ’হামলাকারীর গাড়িতে দুটি বিস্ফোরক ডিভাইস যুক্ত করা ছিল।’

ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদে স্থানীয় সময় আজ শুক্রবার জুম্মার নামাজ চলার সময় এই নৃশংস হামলার ঘটনা ঘটে। এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়ে দুই বাংলাদেশিসহ অন্তত ৪৯ মুসল্লিকে হত্যা করেছে অস্ট্রেলিয়ার এ শ্বেতাঙ্গ সন্ত্রাসী। এতে আরও অন্তত ৪৮ জন গুরুতর আহত হয়েছে।

হামলায় জড়িত সন্দেহে এখন পর্যন্ত এক নারীসহ চার ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।

 

Facebook Comments

" বিশ্ব সংবাদ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ