Foto

বিমানবন্দরে ভিআইপিদের তল্লাশি শিথিলের অনুরোধ


দেশের বিমানবন্দরে সাংসদসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের (ভিআইপি) ক্ষেত্রে নিরাপত্তা তল্লাশি কিছুটা শিথিল করার অনুরোধ করেছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়–সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। বিমান মন্ত্রণালয় বলেছে, এটি করতে হলে সরকারের উচ্চপর্যায়ের নির্দেশনা প্রয়োজন।


গতকাল রোববার জাতীয় সংসদ ভবনে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়–সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এই আলোচনা হয় বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে। সূত্র জানায়, বৈঠকে একজন সাংসদ বলেন, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা তল্লাশির প্রয়োজন রয়েছে। তবে সংসদ সদস্যদের কোমরের বেল্ট বা জুতা খোলানোর বিষয়টি শিথিল করা যায় কি না, তা দেখা যেতে পারে। গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের জন্য নিরাপত্তা তল্লাশির আলাদা সারি (ভিআইপি লাইন) করা যেতে পারে। কমিটির অন্য সদস্যরাও এই বক্তব্যের সঙ্গে একমত পোষণ করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বিমান মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কমিটির সদস্য সৈয়দা রুবিনা আক্তার প্রথম আলোকে বলেন, সবাইকে নিরাপত্তা তল্লাশির মধ্য দিয়েই যেতে হবে। তবে শুধু সংসদ সদস্য নন, নিরাপত্তা তল্লাশির ক্ষেত্রে যাতে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে না হয়, সেটা খেয়াল রাখতে বলা হয়েছে। ভিআইপিদের নিরাপত্তা তল্লাশি কিছুটা শিথিল করা যায় কি না, যেমন বেল্ট, জুতা খোলা এটা যেন না করা হয়, তা দেখা যেতে পারে। তিনি বলেন, বৈঠকে বিভিন্ন প্রকল্পের অগ্রগতি, কোন কোন ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া দরকার—এসবসহ সামগ্রিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ বিমানের নতুন উড়োজাহাজ ময়ূরপঙ্খী ছিনতাইচেষ্টার ঘটনার পর থেকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তাব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। এর কয়েক দিন পর ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম যাওয়ার পথে চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের কাছ থেকে অস্ত্র জব্দ করার ঘটনায় বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিয়ে সমালোচনা আরও জোরালো হয়। এরপর থেকে মূলত দেশের বিমানবন্দরগুলোতে নিরাপত্তাব্যবস্থা এবং যাত্রীদের তল্লাশি জোরদার করা হয়।

এ বিষয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মুহিবুল হক বলেন, সংসদ সদস্যদের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা তল্লাশি শিথিল করার বিষয়ে তাঁরা একটি প্রস্তাব পেয়েছেন। সরকারের উচ্চপর্যায়ে আলোচনা করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

কমিটির সভাপতি র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী, মোশাররফ হোসেন, আশেক উল্লাহ রফিক ও সৈয়দা রুবিনা আক্তার অংশ নেন।

সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কক্সবাজারসহ অন্যান্য পর্যটনকেন্দ্রকে পরিবেশবান্ধব করতে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম আরও উন্নত করা, সেন্ট মার্টিনের পাশাপাশি সোনাদিয়া, মহেশখালী দ্বীপকে পর্যটন আকর্ষণ কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার সুপারিশ করে কমিটি।

 

Facebook Comments

" জাতীয় খবর " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ