Foto

যেসব খাবার খেয়ে শতবর্ষী তারা


দীর্ঘদিন বেঁচে থাকতে চায় কে না চায়? কিন্তু বর্তমান সময়ের এতো চাপপূর্ণ জীবনে এটা কি আদৌ সম্ভব? বিশ্বের দীর্ঘায়ু কিছু ব্যক্তি খাবারের ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট তালিকা মেনে চলতেন। তবে সবার ক্ষেত্রে এই তালিকা ফলপ্রসূ নাও হতে পারে। চলুন জেনে নেওয়া যাক বিশ্বের শতাবর্ষী ব্যক্তিরা কি ধরণের খাবার খেয়ে দীর্ঘদিন বেঁচে ছিলেন।


১. পৃথিবীর অন্যতম বয়স্ক ব্যক্তি ইতালির এমা মোরানো ২০১৭ সালে মারা যান। তখন তার বয়স ছিল ১১৭ বছর। বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে তিনি তার দীর্ঘজীবনের রহস্য বলে গেছেন। তিনি জানিয়েছিলেন, প্রতিদিন সকালে তিনি ৩ করে ডিম খেতেন। এর মধ্যে ২ টি কাঁচা ডিম কিমা করা মাংস দিয়ে খেতেন।

২. আমেরিকান নারী সুসানা মুসহাট জোনস মারা যান ২০১৬ সালে ১১৬ বছর বয়সে। নিজের দীর্ঘ জীবনের জন্য তিনি সকালের নাস্তাকেই গুরুত্ব দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছিলেন প্রতিদিন সকালে তিনি চার টুকরা বেকন এবং ডিম খেতেন।

৩. মিসাও ওকায়া নামের একজন জাপানি নাগরিক বেঁচে ছিলেন ১১৭ বছর। তিনি মারা যান ২০১৫ সালে। তিনি জাপান ও এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে বয়স্ক ব্যক্তি ছিলেন। জাপান টাইমসে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছিলেন, সুস্বাদু খাবারই ছিল তার দীর্ঘায়ুর চাবিকাঠি। তিনি বলেছিলেন, প্রতিদিন তিনি প্রচুর পরিমাণে ভিনেগার দেওয়া ভাত, সামুদ্রিক মাছ , সবজি ও নানারকমের ফল দিয়ে তৈরি জাপানি খাবার ’সুশি’ খেতেন। সেই সঙ্গে দৈনিক আট ঘণ্টা করে ঘুমাতেন।

৪. আমেরিকান নাগরিক তাও পর্চোন-লিঞ্চের বয়স ৯৮ বছর। তিনি বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্ক ইয়োগা প্রশিক্ষক। তিনি একজন নিরামিষভোজী। তবে মাঝে মধ্যে তিনি চিংড়ি খেতেও পছন্দ করেন। এছাড়া তিনি প্রতিদিন তাজা ফলমূল , শাকসবজি খান।

৫. অ্যাডেলি ডানলপ বাস করতেন আমেরিকার নিউ জার্সিতে। তিনি সব ধরণের খাবার খেতেই পছন্দ করতেন। ওটমিল তার খুবই পছন্দের খাবার ছিল। ২০১৭ সালে ১১৪ বছর বয়সে তিনি মারা যান।

৬. ভারতের প্রবীণতম ক্রীড়াবিদ ধর্মপাল সিং গুহ মারা যান ১১৯ বছর বয়সে। খাবারের ব্যাপারে তিনি খুবই সকর্ত ছিলেন। সব ধরণে ফ্যাটি খাবার, চিনি ও ক্যাফেইন জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলতেন তিনি। তার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় থাকতো গরুর দুধ, হারবাল চাটনি এবং মৌসুমি তাজা ফলমূল।

৭. এমা মোরানো মারা যাওয়ার পর এখন পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে প্রবীণ ব্যক্তি ধরা হচ্ছে ভায়োলেট ব্রাউনকে। তার বয়স ১১৭ বছরের বেশি। তার প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় থাকে প্রচুর পরিমাণে মাছ, খাসীর মাংস, মিষ্টি আলু, কমলা এবং আম।

Facebook Comments

" লাইফ স্টাইল " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ