Foto

সিঙ্গাপুরের আকাশসীমায় নিষিদ্ধ বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স


সিঙ্গাপুরের বিমান নিয়ন্ত্রণ সংস্থা তাদের দেশের আকাশসীমায় বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান চলাচল নিষিদ্ধ করেছে। ইথিওপিয়ায় এ সংস্থার একটি বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার দুইদিন পর মঙ্গলবার সিঙ্গাপুরের পক্ষ থেকে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।


Hostens.com - A home for your website

গত রোববার ইথিওপিয় এয়ারলাইনের বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮’র নাইরোবিগামী একটি ফ্লাইট উড্ডয়নের কয়েক মিনিটের মধ্যে বিধ্বস্ত হয়। এতে ওই বিমানে থাকা ১৪৯ যাত্রী ও ৮ ক্রুসহ মোট ১৫৭ আরোহীর সকলেই প্রাণ হারায়। ইন্দোনেশিয়ায় এক মডেলের লায়ন এয়ারের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ১৮৯ জন নিহত হওয়ার মাত্র কয়েকমাস পর মর্মান্তিক এ বিমান দুর্ঘটনা ঘটলো।

এর প্রেক্ষিতে সিঙ্গাপুর বেসামরিক বিমান কর্তৃপক্ষ (সিএএএস) এক বিবৃতিতে জানায়, পাঁচ মাসেরও কম সময়ের মধ্যে বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমানের দু’টি ভয়াবহ দুর্ঘটনার প্রেক্ষাপটে সিঙ্গাপুরের আকাশে বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্সের সকল ধরনের বিমান চলাচল তারা সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে।

বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন এয়ারলাইন তাদের সিডিউল থেকে এ মডেলের বিমান প্রত্যাহার করে নেয়ার পর এমন পদক্ষেপ নেয়া হলো।
কর্তৃপক্ষ জানায়, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার দুপুর ২টা থেকে সিঙ্গাপুরের এ স্থগিতাদেশ কার্যকর হবে। এ মডেলের বিমানের নিরাপত্তা সংক্রান্ত তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেলে স্থগিতাদেশ পুনর্বিবেচনা করা হবে।

ইথিপিয়ান এয়ারলাইন্সের ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ বিমান বিধ্বস্ত হয়ে আরোহী ১৫৭ জনের সবাই নিহত হওয়ার পর প্রশ্নের মুখে পড়েছে মার্কিন বিমান নির্মাতা কোম্পানি বোয়িং। গত অক্টোবরে ইন্দোনেশিয়ার লায়ন এয়ারের একই ধরনের আরেকটি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে সব আরোহী নিহত হয়েছিলেন। এ নিয়ে বোয়িংয়ের নতুন সংস্করণের এই বিমানটি পাঁচ মাসের মধ্যে দ্বিতীয়বার বিধ্বস্ত হলো। ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের বিমানটির মতো লায়ন এয়ারের ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ বিমানটিও উড্ডয়নের কিছুক্ষণের মধ্যেই বিধ্বস্ত হয়ে ১৮৯ আরোহীর সবাই নিহত হয়েছিলেন।

এয়ারলাইন কোম্পানি জানিয়েছে, বিমানটি নিয়ে জটিলতায় পড়েছিলেন পাইলট। তিনি আদ্দিস আবাবায় ফিরে আসতে চেয়েছিলেন। সিইও তেওল্ডে জেব্রেমারিয়াম সাংবাদিকদের বলেছেন, এই অবস্থায় কোনো কিছুই উড়িয়ে দিচ্ছি না। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে খবরে বলা হয়েছে, ফ্লাইটের দৃশ্যমান অবস্থা ভালো ছিল কিন্তু বিমান চলাচল নজরদারি করা ফ্লাইটরাডার২৪ জানিয়েছে, উড্ডয়নের পর বিমানটির উল্লম্ব গতি ছিল অস্থিতিশীল। বিমানটির চালকের নাম সিনিয়র ক্যাপ্টেন ইয়ারেড গেটাচিউ বলে জানানো হয়েছে। কোম্পানিটি জানিয়েছে, চালকের দক্ষতা অসাধারণ এবং আট হাজারের বেশি ঘণ্টা বিমান চালিয়েছেন।

৭৩৭ ম্যাক্স-৮ উড়োজাহাজটির বাণিজ্যিক ব্যবহার শুরু হয় ২০১৭ সাল থেকে। ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্স তাদের ব্যবসার বিস্তৃতির জন্য যে ৩০টি উড়োজাহাজ ক্রয় করছে তাদের মধ্যে কেনা ছয়টির একটি ছিল বিধ্বস্ত বিমানটি। দুর্ঘটনার পর বোয়িং ’গভীর শোক’ প্রকাশ করেছে এবং কারিগরি সহযোগিতা প্রদানের একটি দল পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে। ইথিপিয়ার বিমানটি উড্ডয়নের ছয় মিনিট পর আর লায়ন এয়ারের বিমানটি উড্ডয়নের ১৩ মিনিট পর নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছিল।

লায়ন এয়ারের বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার পর তদন্তকারীরা জানিয়েছিলেন, বিমানকে সচল রাখতে ৭৩৭ ম্যাক্সে সংযোজিত নতুন একটি স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতির (অ্যান্টি-স্টলিং সিস্টেম) সাথে পাইলট সংগ্রাম করছিলেন বলে মনে হয়েছে। তদন্তে যেসব তথ্য পাওয়া যায় তাতে দেখা গেছে, বিমানটি যেন স্থবির হয়ে না পড়ে তার নকশা করে সংযোজিত এই পদ্ধতিটি বিমানের নাকটিকে বারবার নিচের দিকে নামিয়ে দিচ্ছিল, যদিও পাইলট তা ঠিক রাখার চেষ্টা করছিলেন।

দুর্ঘটনায় পড়া এই দু’টি বিমানই নতুন ছিল এবং উড্ডয়নের কিছুক্ষণের মধ্যেই এগুলো বিধ্বস্ত হয়। যুক্তরাষ্ট্রের পরিবহন বিভাগের সাবেক মহাপরিদর্শক ম্যারি স্কিয়াভো সিএনএনকে বলেন, ’এটি অত্যন্ত সন্দেহজনক। নতুন একটি মডেলের বিমান এক বছরে দুইবার বিধ্বস্ত হলো। বিমান পরিবহন শিল্পে এটি সতর্ক সঙ্কেত বাজিয়ে দিয়েছে, কারণ এমনটি ঘটে না।’

Facebook Comments

" বিশ্ব সংবাদ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ

Web Hosting and Linux/Windows VPS in USA, UK and Germany

Visitor Today : 137

Unique Visitor : 75911
Total PageView : 94083